ম্যাপে দেশের সীমানা যুক্ত করার ক্ষেত্রে গভীর নজর রাখে অ্যাপল

ম্যাপে কোনো দেশের সীমানা যুক্ত করার ক্ষেত্রে ‘গভীর নজর’ রাখে মার্কিন জায়ান্ট অ্যাপল।

রাশিয়ার একটা বিতর্কিত সীমান্ত হচ্ছে ক্রিমিয়া। ২০১৪ সালে রাশিয়া কিয়েভ থেকে ক্রিমিয়াকে দখল করে। বেশিরভাগ দেশ এটিকে এখনও ইউক্রেনের অংশ হিসেবে বিবেচনা করে। তবে অ্যাপল তাদের ম্যাপে ক্রিমিয়াকে রাশিয়ার অংশ হিসেবে দেখায়।

অন্যদিকে ইউক্রেন মার্কিন জায়ান্টটির সমালোচনা করেছে ক্রিমিয়াকে রাশিয়ার অন্তর্গত বলে তাদের ম্যাপ এবং আবহাওয়া অ্যাপে যুক্ত করার কারণে।

পরে অ্যাপ দুটি থেকে অ্যাপল ক্রিমিয়াকে রাশিয়ার অংশ হিসেবে দেখানো ছেড়ে দিয়েছে।

এক বিবৃতিতে অ্যাপল জানিয়েছে, তাদের ম্যাপে সীমানা নিয়ে কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে আন্তর্জাতিক আইন মেনে চলে। অবশ্য এর পাশাপাশি প্রাসঙ্গিক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য দেশীয় আইন পর্যালোচনা করে থাকে।

অ্যাপলের মুখপাত্র ট্রুডি মুলার সংবাদ মাধ্যম রয়টার্সকে বলেছেন, আন্তর্জাতিকভাবে বিতর্কিত যে কোনো সীমানা ম্যাপে যুক্ত করার ক্ষেত্রে আমরা খুব বিচার বিশ্লেষণ করে সিদ্ধান্ত নিই।

মুলার জানান, রাশিয়ার বাইরে তাদের ম্যাপে কোনো পরিবর্তন আনেনি এবং রাশিয়ান ব্যবহারকারীদের জন্য সেদেশে কার্যকর হওয়া একটি নতুন আইন কার্যকর হওয়ার কারণে এই পরিবর্তন করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

ইউরোপিয় ইউনিয়ন এবং যুক্তরাষ্ট্র ক্রিমিয়াকে রাশিয়ার অংশ হিসেবে স্বীকৃতি দেয়নি।

রাশিয়ার পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ স্টেট ডুমা এক বিবৃতিতে বলেছে, ক্রিমিয়া এবং সেভাস্তোপল এখন অ্যাপল ডিভাইসে রাশিয়ার অঞ্চল হিসেবে রয়েছে।

এ বিষয়ে অ্যাপল রাশিয়ার সঙ্গে বেশ কয়েকমাস ধরে আলোচনা করে তা যুক্ত করেছে।

প্রযুক্তির পথ ও জয়গানের সব খবর তুলে এনে জীবন সহজ করছে ITSohor। দেশ ও বিদেশের প্রযুক্তির সর্বশেষ সংবাদ সবার আগে জানতে ভিজিট করুনঃ আইটি শহরে

আপনার মতামত, লাইক ও কমেন্টের সঙ্গে থাকুন আমাদের আইটি শহরের ফেসবুক ফ্যান পেজে

35 Views

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

HTML Snippets Powered By : XYZScripts.com